Diary of a COVID-19 Patient

0
74
Courtesy: Millennium Post (for non-profit, educational use).

(Exclusive for Humanity College — will post English translation soon.)

___________________________

করোনাভাইরাস থেকে সদ্য ফিরে আসা এক রোগীর ডায়েরি। আমার বিশেষ অনুরোধে আমার ছাত্র (এখন উদ্ভিদবিজ্ঞানের অধ্যাপক) Motiyur Rahaman এই ধারাবাহিক লেখা কেবলমাত্র হিউম্যানিটি কলেজের জন্যে পাঠিয়েছে। আমি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করলাম।

_______________________________

ভয় না, জয় করতে হবে..

**********************

মতিয়ূর রহমান

———————

আজ সাহিত্য বা কথাশিল্প না, দরকারি কথা। দরকারি কথা ভনিতা ছাড়াই মানুষ পছন্দ করেন । সারা বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস বা কোভিড -১৯ এর যে কালো ছায়া এখন মানুষ এবং তার সভ্যতাকে ঘিরেছে, কীভাবে এবং কী পরিস্থিতিতে তা আতঙ্কিত করেছে ও করছে তা বুঝিয়ে বলার ভাষা এই মুহূর্তে আমার নেই।

মানুষের কুসংস্কার, অশিক্ষা, বিজ্ঞান ও ভাইরোলজি সম্পর্কে চেতনতাহীনতা বহুক্ষেত্রেই মূল বিপদের থেকে বড় হয়ে দেখা দিচ্ছে ব্যক্তিগত ও সামাজিক স্তরের জীবনে । সরকারি প্রচার ও জন সচেতনতা সৃষ্টির প্রচেষ্টাকে সম্পূর্ণ বিস্মৃত হয়ে মানুষের প্রতিক্রিয়া হচ্ছে বিপরীত। অনেক মানুষ রোগ না রোগী বা তার পরিবারের বিরুদ্ধে যুদ্ধযাত্রা করছে কোভিড বা করোনা নাম শুনেই। বিভিন্ন প্রচার মাধ্যম ধরে তা সামনে আসছে মানুষের। তার ঢালাও প্রচারও হচ্ছে ও সমালোচনাও হচ্ছে নানাদিক দিয়ে ।

অতিমারির এই ভয়ঙ্কর দিনে এবং সংকটে রোগটির সম্পর্কে মানুষের বিজ্ঞানস্মমত সঠিক চেতনা, সঠিক বোধ এবং বিচার – বিশ্লেষণ ক্ষমতা মানুষকে অনেকটাই রেহাই দিতে পারত এই মারাত্মক সংকটকালে । কিন্তু চারদিকে স্পষ্টতই তার অভাব। তাই গুজব ও আতঙ্ক মিলেমিশে আসল সমস্যাটি হয়ে যাচ্ছে ভেজা কম্বল । যাকে আর চাগানো যাচ্ছে না কিছুতেই ।

বিশ্বজনীন এবং সামগ্রিক এই ত্রাস ও আতঙ্কের পরিবেশে যেকোনো ব্যক্তি তাঁর ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য ও পারিবারিক স্বাস্থ্য নিয়ে আতঙ্কিত ও বিব্রত থাকবে এটাই স্বাভাবিক।

এরমাঝে মানুষের অসুস্থতা ও তার চিকিৎসা নিয়ে বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিং হোম গুলোর একটার পর একটা নানা জঘন্য চরিত্র মানুষের সামনে আসছে সামাজিক মাধ্যমের মাধ্যমেই। তার থেকেও ছড়াচ্ছে আতঙ্ক। শুনলে মানসিক অবস্থা ঠিক থাকে না। কেমন যেন পাগল পাগল লাগে। রোগ হওয়ার আগেই মানুষ যেন মনে মনে মরে যায় রোগের ভাবনা ও আতঙ্কতেই ।

ঠিক এইরকম একটা সময়ে জুন মাসের মাঝামাঝি আমি অসুস্থ হই। আমার ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য কোনদিনই তেমন একটা শক্তিশালী ছিল না। ঋতু পরিবর্তনের সময়ে তা আমাকে ভোগাবেই ভোগাবে ক’দিন। এবারেও তাই হলো। পশ্চিম বঙ্গে মৌসুমি বায়ু ঢুকল আর চলে এলো বর্ষাকাল। আমার শরীরও খারাপ করল। শুরু হলো ডাক্তার দেখানো। শারীরিক অসুবিধা, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট এবার যেন বেশি এবং কিছুতেই তা আর বাগ মানে না ।

পরবর্তী অংশ এবং ব্যক্তিগত ‘কোভিড কথা’ লিখব দু – তিন দিন পর ।

সকলকে আমার আন্তরিক ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জানালাম।

(To be continued)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here